৪০ কোটি ডলার ফেরত পাবে লাখো গ্রাহক - Natore News | নাটোর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ | বিনোদন খবর

Post Top Ad

Responsive Ads Here
৪০ কোটি ডলার ফেরত পাবে লাখো গ্রাহক

৪০ কোটি ডলার ফেরত পাবে লাখো গ্রাহক

Share This
ডিজিটাল মুদ্রার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় চুরির ঘটনায় অর্থ ফেরত দেওয়া হবে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের। কয়েনচেক বলেছে, ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের ৪০ কোটি ডলার মূল্যমানের ডিজিটাল বা ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। ডিজিটাল মুদ্রার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় চুরির ঘটনায় অর্থ ফেরত দেওয়া হবে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের। কয়েনচেক বলেছে, ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের ৪০ কোটি ডলার মূল্যমানের ডিজিটাল বা ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। ডিজিটাল মুদ্রার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় চুরির ঘটনায় অর্থ ফেরত দেওয়া হবে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের। জাপানের ডিজিটাল মুদ্রার বিনিময় প্রতিষ্ঠানগুলোর অন্যতম কয়েনচেক আজ রোববার এ খবর জানিয়েছে। অন্যদিকে হ্যাকিংয়ে অর্থ চুরির ঘটনায় তোপের মুখে পড়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত টোকিওভিত্তিক কোম্পানি কয়েনচেক বলেছে, অর্থ চুরির ঘটনায় মোট ৫৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার মূল্যমানের ডিজিটাল মুদ্রা খোয়া গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬০ হাজার গ্রাহক। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের ৪০ কোটি ডলার মূল্যমানের ডিজিটাল বা ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। খোয়া যাওয়া অর্থের প্রায় ৯০ শতাংশ ফিরিয়ে দেওয়া হবে। এ ছাড়া কোন স্থান থেকে হ্যাকাররা হামলা চালিয়েছে, তা বের করার চেষ্টা চলছে। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, কয়েনচেকের কম্পিউটার ও ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক হ্যাক করে এই বিপুল পরিমাণ ডিজিটাল অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ ধরনের ডিজিটাল মুদ্রাকে বলা হয় ক্রিপ্টো-কারেন্সি। এরই মধ্যে বিটকয়েন বাদে সব ধরনের ক্রিপ্টো-কারেন্সি জমা ও উত্তোলন স্থগিত করেছে কয়েনচেক। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা এনইএম-এর তহবিল। প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে, ডিজিটাল মুদ্রাগুলো যে ইন্টারনেট ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে, সেটির হদিস পাওয়া গেছে। তবে জড়িত ব্যক্তিদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সংবাদ সংস্থা ব্লুমবার্গ বলেছে, হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে চুরির খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা এনইএমের বিনিময়মূল্য ১১ শতাংশ কমে ৮৭ সেন্টে দাঁড়িয়েছে। অন্যান্য ক্রিপ্টো-কারেন্সির মধ্যে বিটকয়েনের বিনিময়মূল্য ৩ দশমিক ৪ শতাংশ এবং রিপলের বিনিময় মূল্য ৯ দশমিক ৯ শতাংশ কমে গেছে। চুরি যাওয়া অর্থ কয়েনচেকের ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের ‘হট ওয়ালেটে’ রাখা হয়েছিল। এ ছাড়া ‘কোল্ড ওয়ালেটে’ অফলাইনে রাখা যায়, এ-সংক্রান্ত তহবিল। গত শুক্রবার হ্যাকাররা কয়েনচেকের নেটওয়ার্কে হামলা চালায়। এর সাড়ে আট ঘণ্টা পর হ্যাকিংয়ের ঘটনা জানা যায়। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা ইউসুকে ওতসুকা এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘হামলার সময় ডিজিটাল মুদ্রার বিনিময়মূল্য অনুযায়ী প্রায় ৫৮ বিলিয়ন ইয়েন মূল্যমানের অর্থ অন্য একটি ইন্টারনেট ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে।’ বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, এরই মধ্যে এ ঘটনা সম্পর্কে স্থানীয় পুলিশ ও জাপানের আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস এজেন্সিকে জানানো হয়েছে। জাপানের প্রধান প্রধান সংবাদমাধ্যমগুলো কয়েনচেকের কড়া সমালোচনা করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ‘দুর্বল’ ভূমিকার সমালোচনা করে বলা হয়েছে, নিরাপত্তাকে গুরুত্ব না দিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণেই মনোযোগ দিয়েছিল তারা। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে আরও বলা হয়েছে, কয়েনচেকের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাজনিত পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। জাপানের প্রায় ১০ হাজার ব্যবসায় ক্রিপ্টো-কারেন্সি ব্যবহার করা হয়। ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে বিশ্ব মুদ্রাবাজারে ডিজিটাল মুদ্রা হিসেবে বিটকয়েনের আবির্ভাব ঘটে। এ মুদ্রার লেনদেনের পুরোটাই হয় ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে বা অনলাইনে। এর আগে ২০১৪ সালে টোকিওভিত্তিক আরেকটি বিনিময় প্রতিষ্ঠান এমটিগক্সের নেটওয়ার্ক থেকে ৪০ কোটি ডলার চুরি গিয়েছিল। চুরির ঘটনা স্বীকার করার পর ওই প্রতিষ্ঠান অচল হয়ে গিয়েছিল।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here