এইচপি ফেরত নিচ্ছে ঝুঁকি, ব্যাটারি বিস্ফোরণ ল্যাপটপ গুলো - Natore News | নাটোর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ | বিনোদন খবর

Post Top Ad

Responsive Ads Here
এইচপি  ফেরত নিচ্ছে  ঝুঁকি, ব্যাটারি বিস্ফোরণ ল্যাপটপ  গুলো

এইচপি ফেরত নিচ্ছে ঝুঁকি, ব্যাটারি বিস্ফোরণ ল্যাপটপ গুলো

Share This
এইচপি তাদের বেশকিছু ল্যাপটপ এবং মোবাইল ওয়ার্কস্টেশন কম্পিউটার ফেরত নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে, কারণ পণ্যগুলো অতিরিক্ত গরম হওয়া থেকে বিস্ফোরণ ঝুঁকি রয়েছে।

এইচপির ইতিহাসে এটি বিব্রতকর পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি, কেননা প্রতিষ্ঠানটিকে গত তিন বছরের মধ্যে দ্বিতীয় বারের মতো নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করে ল্যাপটপ প্রত্যাহারের ঘোষণা দিতে হলো।

২০১৫ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বিক্রিত এইচপির বেশ কিছু ডিভাইসে নিরাপত্তা ঝুঁকি রয়েছে। গ্রাহকরা তাদের ল্যাপটপ কিংবা মোবাইল ওয়ার্কস্টেশন নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে কিনা তা https://batteryprogram687.ext.hp.com সাইট থেকে দেখে নিতে পারবেন এবং ব্যাটারির নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করত পারবেন।

ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম, গলে যাওয়া কিংবা জ্বলে যাওয়া সংক্রান্ত ৮টি অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের কনজ্যুমার প্রোডাক্ট সেফটি কমিশনে আসার পর, সমস্যা বিদ্যমান নির্দিষ্ট ডিভাইসগুলো প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় এইচপি। এর মধ্যে একটি অভিযোগ রয়েছে, যেখানে প্রথম ডিগ্রি বার্নের ঘটনা এবং অন্য তিনটি অভিযোগে ৪,৫০০ ডলার পর্যন্ত ক্ষতির ঘটনা রয়েছে।

কেন ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হচ্ছে, সে ব্যাপারে এখনো এইচপি টেকনিক্যাল কারণ জানায়নি। নিজস্ব দক্ষ টেকনিশিয়ানদের মাধ্যমে বিনামূল্যে ব্যাটারি প্রতিস্থাপনের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়াও ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি একটি আপডেট উন্মুক্ত করেছে, যা সিস্টেমকে ‘নিরাপদ ব্যাটারি মোডে’ নিয়ে যাবে। এটি ব্যাটারির মাধ্যমে ডিভাইস ব্যবহারের পরিবর্তে বিদ্যুতের মাধ্যমে ডিভাইস ব্যবহার করে কাজ চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেবে।

এইচপির একজন মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা সম্প্রতি জেনেছি যে, আমাদের ব্যাটারি সরবরাহকারীদের মধ্যে এক সরবরাহকারীর ব্যাটারিতে সমস্যা থাকায় নির্দিষ্ট কিছু ল্যাপটপ এবং মোবাইল ওয়ার্কস্টেশন সম্ভাব্য নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে। এই সমস্যা মোকাবেলায় আমরা ডিভাইসগুলো প্রত্যাহার এবং ব্যাটারি প্রতিস্থাপনে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। এসব ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হয়ে আগুন ধরে যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। গ্রাহকদের নিরাপত্তা আমাদের প্রধান লক্ষ্য।’

এইচপি জানিয়েছে, গত ২ বছরে বিশ্বব্যাপী বিক্রি হওয়া ল্যাপটপ এবং মোবাইল ওয়ার্কস্টেশনের ক্ষেত্রে ০.১ শতাংশে এ সমস্যা রয়েছে।

প্রোবুক, এনভি, প্যাভিলিয়ন, জেডবুক, স্টুডিও জি থ্রি এবং এইচপি ১১ সিরিজের নির্দিষ্ট কিছু ডিভাইসে সমস্যাযুক্ত লিথিয়াম আয়ন ব্যাটরি রয়েছে। কিছু ব্যাটারিও প্রত্যাহার করছে এইচপি যা অ্যাকসেসরিজ হিসেবে বিক্রি কিংবা সার্ভিসিংয়ের সময় প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল।

আপনার এইচপি ল্যাপটপ বা মোবাইল ওয়ার্কস্টেশনে সমস্যাযুক্ত ব্যাটারি রয়েছে কিনা তা জানতে এবং সমস্যার সমাধানে https://batteryprogram687.ext.hp.com সাইট থেকে ‘এইচপি ব্যাটারি প্রোগ্রাম ভ্যালিডেশন ইউটিলিটি’ ডাউনলোড করে নিন।

ব্যাটারি বিস্ফোরণ ঝুঁকির কারণে বাধ্য হয়ে ল্যাপটপ প্রত্যাহারের ঘটনা এইচপির প্রথম নয়। ২০১৬ সালের জুনের ১৪ তারিখে এইচপি বিশ্বব্যাপী ৪১ হাজার ব্যাটারি প্রত্যাহার ও প্রতিস্থাপনের ঘোষণা দিয়েছিল। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে তা বেড়ে গিয়ে দাড়ায় ১ লাখ ১ হাজার ব্যাটারি সমস্যায়, ল্যাপটপগুলো ২০০৩ সালের মার্চ থেকে ২০১৬ সালের অক্টোবরের মধ্যে বিক্রি হয়েছিল।

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here