আরও দুটি রেকর্ডের সামনে তামিম - Natore News | নাটোর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ | বিনোদন খবর

Post Top Ad

Responsive Ads Here
আরও দুটি রেকর্ডের সামনে তামিম

আরও দুটি রেকর্ডের সামনে তামিম

Share This
টানা দুই ম্যাচ জিতে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে। এমন নির্ভার হয়ে আর কোন টুর্নামেন্টে বোধকরি খেলার সুযোগ হয়নি বাংলাদেশ দলের। এ কারণে এখন ফাইনালের আগে চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে টাইগারদের মোক্ষম সুযোগ একাদশে সুযোগ না পাওয়াদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ঝালিয়ে নেয়ার। তবে ওপেনার তামিম ইকবাল জানালেন দলের পারফর্মেন্সের উন্নতি করা এবং ছোটখাটো ভুলগুলো শুধরে নেয়ার লক্ষ্যেই এখন বাকি দুটি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। দুই ম্যাচেই বড় ইনিংস খেলেছেন তামিম- সুযোগ ছিল সেঞ্চুরির। কিন্তু সেটা না হলেও নিজের ব্যাটিং নিয়ে সন্তুষ্ট এ বাঁ-হাতি। ইতোমধ্যেই প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার রানের রেকর্ড করেছেন। আরও দুটি রেকর্ড আজ অপেক্ষা করছে তার জন্য। নির্দিষ্ট ভেন্যুতে সর্বাধিক রান করার বিশ্বরেকর্ড গড়তে তামিমের প্রয়োজন ৪২ রান এবং প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ওয়ানডেতে ৬ হাজার রান ছুঁতে প্রয়োজন ৬৬ রান। ক্রমেই নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন তামিম। ২৮ বছর বয়স হতেই তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পার করে ফেলেছেন ১১ বছর। অন্যতম অভিজ্ঞ ক্রিকেটার এখন টাইগারদের। আর ধারাবাহিক নৈপুণ্য দেখিয়ে ইতোমধ্যেই অপরিহার্য একজন হয়ে উঠেছেন। সর্বাধিক সেঞ্চুরি এবং তিন ফরমেটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই সর্বাধিক রানের মালিক তিনি বাংলাদেশের পক্ষে। চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজেও বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ে অন্যতম কা-ারি। জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে ৮৪ রানের অপরাজিত এবং শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ৮৪ রানের ইনিংস দুটো সহজ জয় পাইয়ে দিয়েছে বাংলাদেশকে। তবে দুটি সেঞ্চুরি থেকেই তিনি বঞ্চিত হলেন। এ বিষয়ে তামিম বলেন,‘দুর্ভাগ্য নয়, কিন্তু আমার কাছে মনে হয় যে দ্বিতীয় ম্যাচে আমি যেভাবে খেলছিলাম একটা সময় ছিল যে আমি শুরু করেছি খুবই ধীরগতিতে। আমার কাছে যেটা সবচেয়ে ভাল লেগেছে ওই ইনিংসের ব্যাপারে যে আমি উইকেটটা ছুঁড়ে দিয়ে আসিনি। আমি অপেক্ষা করছিলাম সময় আসলে নির্দিষ্ট কোন বোলারকে টার্গেট করে রানের গতি পরবর্তীতে বাড়িয়ে নেয়ার জন্য। সেটাতে আমি সফল হয়েছিলাম, কিন্তু খুবই ভাল একটা বলে আউট হয়ে যাই। কিন্তু সার্বিকভাবে নিজের ব্যাটিং নিয়ে আমি সন্তুষ্ট।’ ১৭৬ ওয়ানডে খেলা তামিমের এই মুহূর্তে রান ৩৫.১১ গড়ে ৫৯৩৪। আর মাত্র ৬৬ রান হলেই তিনি প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে ৬ হাজার রানের মালিক হয়ে যাবেন। আর ৪২ রান করতে পারলে মিরপুর ভেন্যুতে তিনি নির্দিষ্ট কোন ভেন্যুতে সর্বাধিক রানের বিশ্বরেকর্ড গড়বেন। এই মুহূর্তে সনাথ জয়াসুরিয়া ওই রেকর্ড ধরে রেখেছেন। তিনি ২৫১৪ রান করেছিলেন কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ৭১ ম্যাচ খেলে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা তামিম মিরপুরে করেছেন ৭৩ ম্যাচে ২৪৭৩ রান। আগের ম্যাচে লঙ্কানদের বিরুদ্ধে ৮৪ রানের ইনিংস খেলে তামিম ছাড়িয়ে যান পাকিস্তানের ইনজামাম-উল-হককে। ওই দিনই তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার রানের রেকর্ডও গড়েন। ইনজামাম নির্দিষ্ট কোন ভেন্যুতে রান করার দিক থেকে তিন নম্বরে আছেন শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৫৯ ম্যাচে ২৪৬৪ রান করে। নিজের রেকর্ড নিয়ে তামিম বলেন, ‘দুটোই মাইলফলক। কেউ দশ হাজার রান করলে এটা অবশ্যই মাইলস্টোন। জানি না কয়জন করছে। সাকিবের ১০ হাজার হয়েছে, মুশফিক সব মিলিয়ে ৩০০ ম্যাচ খেলেছে। বাংলাদেশ ক্রিকেটে দুই, তিন বছর হলো ভাল খেলতে শুরু করেছে। আমাদের সত্যি কথা কোন রেকর্ডও একসময় হয়ত ছিল না। কারণ আমরা শিখছিলাম। আমরা খুব নতুন ছিলাম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। অর্জন করা শুরু করেছি উদযাপন করা উচিত। আজ থেকে দশ বছর পর হয়ত এইগুলো এত হাইলাইটেড হবে না। তখন আমাদের যারা নতুন খেলবেন তাদের লক্ষ্যই অন্যরকম হতে পারে।’ আজ তামিমের আরও দুই মাইলফলক ছোঁয়ার ম্যাচে বাংলাদেশ দল আছে ফুরফুরে অবস্থানে। ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যাওয়াতে এখন নির্ভার হয়ে খেলতে পারবে টাইগাররা। সুযোগ আছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার। এ বিষয়ে তামিম বলেন, ‘আমি ওই অবস্থানে নেই এই কথাটা বলার জন্য। কারণ, এসব নির্বাচক, কোচ ও অধিনায়কে ওপর নির্ভর করবে। আমার কাছে মনে হয় যে যারা সাইড বেঞ্চে আছে তারাও সক্ষম ভাল খেলার জন্য। যদি তারা এ রকম কোন কিছু সিদ্ধান্ত নেয়, আমি নিশ্চিত যেই খেলবে তার সেরা সামর্থ্য হিসেবে খেলার চেষ্টা করবে। আমরা যেভাবে করে যাচ্ছি দল হিসেবে, দুইটা ম্যাচ খুব ভাল খেলেছি- আমরা এখন মনোযোগী হতে চাই যে আমাদের যদি ছোট ছোট কোন ভুল হয়ে থাকে দুই ম্যাচে আরেকটু বেশি উন্নতি যেন করতে পারি।’ ফাইনালে যেতে পারে জিম্বাবুইয়ে কিংবা শ্রীলঙ্কার মধ্যে যে কোন একটি দল। কিন্তু প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ চাইছে কাকে? এ বিষয়ে তামিম বলেন, ‘আমি ওরকম করে বলব না যে শ্রীলঙ্কাকে চাই বা জিম্বাবুইয়েকে চাই। আমাদের কাজ হলো, কাল (আজ) আমাদের জন্য জরুরী একটা খেলা। আমাদের আরও ভাল কিছু করার সুযোগ আছে। ওই জিনিসগুলো নিশ্চিত করতে হবে। ফাইনালে যার সঙ্গে দেখা হবে ওরকম করেই খেলব।’

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here